কিভাবে শুরু হয় পরিমনির ক্যারিয়ার

পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার সিংহখালী গ্রামে নানা বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন ঢালিউডের প্রথম সারির নায়িকা পরীমনি। একটি গ্রাম থেকে উঠে আসা মেয়ের ঢালিউড জয়ের গল্পটা এত সহজ ছিল না।

পরীমনি বড় হয়েছেন পিরোজপুরে নানা শামসুল হক গাজীর কাছে। সেখান থেকেই তিনি তার মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক শেষ করেন। সাতক্ষীরা সরকারি কলেজে বাংলা বিভাগে বি এ অনার্স এ পড়াকালীন ২০১১ সালে ঢাকায় চলে আসেন এবং বুলবুল ললিতকলা একাডেমিতে নাচ শেখেন।

আরও পরুনঃ আবার কাকে নিয়ে মুখ খুললেন জায়েদ খান?

পরীমনি মডেলিং এর মাধ্যমে তার কর্ম জীবন শুরু করেন। তিনি বিভিন্ন নৃত্যানুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন এবং টিভি নাটকে অভিনয় করেন। মডেলিং থেকে ছোটপর্দায় এবং তারপর রূপালী পর্দায় অভিনয় শুরু করেন পরীমনি। মুক্তির আগেই ২৩টি সিনেমায় অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়ে রীতিমত হৈ চৈ ফেলে দিয়েছিলেন পরীমনি।

পরীর ঢালিউডে যাত্রা ২০১৫ সালে ‘ভালোবাসা সীমাহীন’ সিনেমার মধ্য দিয়ে। তবে ‘রানাপ্লাজা’ সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হয়ে তিনি সবার নজরে আসেন। কিন্তু গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘স্বপ্নজাল’ সিনেমা ঢালি ইন্ডাস্টিকে এক অন্য পরী উপহার দেয়। একটি চঞ্চল, বুদ্ধিমতী, সুন্দরী মেয়ে রাতারাতি তারকা বনে যান। তকমা লেগে যায়, ঢাকাই সিনেমার সবচেয়ে সুন্দরী নায়িকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *