আপিলে প্রার্থিতা ফিরে পেলেন মাহিয়া মাহি

নিজস্ব প্রতিনিধি :

নির্বাচন কমিশনে (ইসি) আপিল করে প্রার্থিতা ফিরে পেলেন আলোচিত চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। তিনি রাজশাহী-১ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন ফরম দাখিল করেছিলেন। যাচাই-বাছাইয়ের পর সেটি বাতিল করেন রাজশাহী জেলা প্রশাসক। অবশেষে আপিলে তার মনোনয়নপত্র বৈধ হলো।

সোমবার আপিল শুনানির দ্বিতীয় দিনে দুপুর আড়াইটায় মাহির মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। এ সময় ইসি চত্ত্বরে উল্লাসে ফেটে পড়েন এই নায়িকা। সাংবাদিকদের সামনে আঙুলে বিজয়সূচক চিহ্ন দেখিয়ে নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন তিনি। তার সঙ্গে ছিলেন স্বামী রাকিব হাসান সরকার।

এর আগে গত ৩ ডিসেম্বর যাচাই-বাছাইয়ের পর মাহির মনোনয়নপত্র বাতিল করেন রাজশাহী জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ। জানানো হয়, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মাহি যেসব ভোটারের নাম ও স্বাক্ষর দিয়েছিলেন, সেগুলো যাচাই-বাছাই করে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি। সাধারণত কোনো প্রার্থীর ১০ জনের ভোটার যাচাই করা হয়। মাহির ক্ষেত্রে তিনজনের তথ্য পাওয়া যায়নি।

মনোনয়নপত্র বাতিলের পর গত শুক্রবার নির্বাচন কমিশনে আপিল করেন মাহিয়া মাহি। প্রার্থিতা ফিরে পেলেন আপিল শুনানির দ্বিতীয় দিন।

এবার চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে প্রার্থী হতে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র কিনেছিলেন সদ্য রাজনীতিতে আসা মাহি। সেখান থেকে দল মনোনয়ন দিয়েছে বর্তমান সংসদ সদস্য জিয়াউর রহমানকে। এরপর মাহি রাজশাহী-১ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দেন। সেই মতো রাজশাহীর রিটার্নিং অফিসারের দপ্তরে মনোনয়নপত্র জমা দেন।

এর আগে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের উপনির্বাচনে প্রার্থী হতে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র কিনেছিলেন মাহি। সে বার তাকে মনোনয়ন দেয়নি আওয়ামী লীগ।

গত বছরের ২৬ অক্টোবর বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটে মাহি দুটি পদ পান। এর মধ্যে সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটিতে তিনি যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হন এবং রাজশাহী বিভাগীয় কমিটিতে পান আহ্বায়কের দায়িত্ব। শুরু হয় রাজনীতিতে মাহির পথচলা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *